ভোটার আইডি কার্ড জন্ম তারিখ সংশোধন | অনলাইনে ভোটার আইডি কার্ড সংশোধন

 ভোটার আইডি কার্ড জন্ম তারিখ সংশোধন - ভোটার আইডি কার্ডের জন্মতারিখ যদি ভুল হয়ে থাকে কীভাবে তা আপনি সমাধান করবেন কথা বলব আজকে বিষয়ে আপনি চাইলে খুব সহজে অনলাইনের মাধ্যমে আপনার ভোটার আইডি কার্ডের জন্ম তারিখ সংশোধন করে নিতে পারেন।


অন্য পোষ্ট: জন্ম নিবন্ধন আবেদনের বর্তমান অবস্থা | জন্ম নিবন্ধন অনলাইন চেক


ভোটার আইডি কার্ড জন্ম তারিখ সংশোধন | অনলাইনে ভোটার আইডি কার্ড সংশোধন


ভোটার আইডি কার্ড জন্ম তারিখ সংশোধন 

ভোটার আইডি কার্ড জন্ম তারিখ সংশোধন আপনি দুটি উপায়ে করতে পারেন একটি হলো আপনি সরাসরি গিয়ে তারপরে করতে পারেন আরেকটি হলো আপনি অনলাইনের মাধ্যমে ভোটার আইডি কার্ডের জন্ম তারিখ সংশোধন করতে পারেন সরাসরি কিভাবে কে আপনি ভোটার আইডি কার্ডের জন্ম তারিখ সংশোধন করবেন সেটি প্রথমে বলে দিচ্ছি।

ভোটার আইডি কার্ড জন্ম তারিখ সংশোধন উপজেলা নির্বাচন অফিস

আপনি খুব সহজেই আপনার উপজেলা নির্বাচন কমিশন অফিসে গিয়ে ভোটার আইডি কার্ডের জন্ম তারিখ সংশোধন করতে পারবেন। সেজন্য আপনাকে যে কাজটি করতে হবে আপনাকে একটি ফরম পূরণ করতে হবে এটি হলো 2 নং সংশোধনীফরম। এই ফরমটি পূরণ করার সময় অবশ্যই আপনাকে নির্ধারিত ফি জমা দিয়ে সেটির রশিদসহ আপনার প্রয়োজনীয় সকল কাগজপত্র  দিয়ে পিনাপ করে নির্বাচন কমিশন অফিসে জমা দিয়ে আসতে হবে। এভাবে আপনি উপজেলা নির্বাচন কমিশন অফিসে গিয়ে আপনার জন্ম তারিখ সংশোধন করতে পারবেন । তবে অবশ্যই জন্ম তারিখ সংশোধনের ক্ষেত্রে আপনাকে অপেক্ষা করতে হতে পারে তিন থেকে চার মাসের।



অনলাইনে ভোটার আইডি কার্ড সংশোধন

আপনি যদি অনলাইনের মাধ্যমে আপনার ভোটার আইডির জন্ম তারিখ সংশোধন করতে চান সেটি আপনি করতে পারবেন। এ জন্য সর্বপ্রথম আপনাকে যে কাজটি করতে হবে services.nidw.gov.bd এই ওয়েবসাইটটিতে আপনাকে প্রবেশ করতে হবে । এই ওয়েবসাইটে গিয়ে প্রথমত আপনাকে একটি অ্যাকাউন্ট তৈরি করতে হবে। আপনি আপনার একাউন্ট তৈরী করে নেবেন । অ্যাকাউন্ট তৈরি হয়ে গেলে আপনি নিচের দিকে লগ ইন করুন এই ফরমটি তে গিয়ে আপনার তথ্য দিয়ে লগইন করে নিবেন।

লগইন করার পর আপনার প্রোফাইলের সকল তথ্য আপনি দেখতে পাবেন । এই তথ্যগুলি মধ্য থেকে আপনার জন্মতারিখ তথ্য থেকে পুনরায় এডিট করে নিবেন। এডিট করে নেওয়ার পর পরবর্তী ধাপে আপনাকে ক্লিক করতে বলবে এবং সেখানে আপনার এডিট বাবদ  একটা  ফি আসবে সেই ফি জমা দেওয়ার পর আপনাকে আপনার প্রয়োজনীয় কাগজপত্র জমা দিতে হবে । আপনি যে তথ্য দিয়েছেন  সেটির প্রমাণ দিতে হবে এক্ষেত্রে আপনার আপনি যদি পড়াশোনা করে থাকেন সেক্ষেত্রে আপনার সার্টিফিকেট জমা দিতে পারেন।

আপনার প্রয়োজনীয় কাগজপত্র আপলোড হয়ে গেলে আপনাকে তথ্য সংশোধনের জন্য অপেক্ষা করতে হবে । কেননা এটি নির্বাচন অফিস থেকে যাচাই-বাছাই করে দেখে তারা যদি মনে করে আপনার তথ্য সঠিক তাহলে পরিবর্তন করে দিবে আর যদি কোন ভুল থাকে তাহলে অবশ্যই পরিবর্তন হবে না।পুনরায় আবার আপনার প্রমাণস্বরূপ সঠিক কাগজপত্র জমা দিতে হবে।


অনলাইনে ভোটার আইডি কার্ড সংশোধন করতে কত দিন লাগে

অনলাইনে ভোটার আইডি কার্ড সংশোধন করতে কতদিন সময় লাগে এটি আসলে নির্দিষ্ট করে বলা যায় না।  তবে সাধারণত দুই থেকে তিন মাসের মত সময় লাগে । তবে আপনার সংশোধন কাগজের উপর আসলে নির্ভর করে যে কতদিন লাগতে পারে যেমন ধরা যায় যদি আপনি আপনার জন্ম তারিখ সংশোধন করেন এক্ষেত্রে আপনার খুব তাড়াতাড়ি আপনি পেয়ে যাবেন । 

আবার দেখা যায় যে আপনি আপনার নিজের স্বামীর নাম পরিবর্তন করবেন এমন যদি বড় ধরনের সমস্যা হয় এক্ষেত্রে আপনার  স্বামীর কাবিনের কাগজ পত্র দরকার হবে,  ভোটার আইডি কার্ডের প্রয়োজন হবে যাবতীয় কাগজপত্র রয়েছে সেগুলো দিয়ে সাবমিট করার পরে বেশ কয়েকদিন সময় আপনার চলে যেতে পারে নির্দিষ্ট তবে বলা যাবে না। 


 তবে অবশ্যই আপনি দুই থেকে তিন মাস অপেক্ষা করবেন। এখানে একটা কথা বলে রাখা ভাল অবশ্যই আপনার প্রয়োজনীয় কাগজপত্র আপনি সঠিকভাবে জমা দিবেন।  এবং জমা দেওয়ার পরে আপনি মাঝে মাঝে নির্বাচন অফিসের হেল্প লাইন নাম্বার এ আপনি ফোন দিয়ে আপনার কাগজ বর্তমানে কি অবস্থায় রয়েছে সেটি জেনে নিবেন। আমি নির্বাচন অফিসের হেল্প লাইন নাম্বার নিচে তুলে ধরছি 105
Next Post Previous Post
No Comment
Add Comment
comment url