জন্ম নিবন্ধন আবেদন | নতুন জন্ম নিবন্ধন আবেদন

জন্ম নিবন্ধন আবেদন | নতুন জন্ম নিবন্ধন আবেদন - আপনি যদি জন্ম নিবন্ধন করতে চান। নিজের অথবা অন্য কারো জন্য করতে চান। তাহলে এই পোস্টটি আপনাদের জন্য হবে। এই পোষ্টের মাধ্যমে এখন আমি আপনাদের সাথে শেয়ার করব জন্ম নিবন্ধনের আবেদন কিভাবে করতে হয়? আবেদন করতে কি কি প্রয়োজন? তা নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা করব। আপনার যদি আমার পোস্টটি পড়েন। তাহলে, আশা করি আপনাদের কাজে আসবে।


জন্ম নিবন্ধন আবেদনের বর্তমান অবস্থা

জন্ম নিবন্ধন সংশোধন আবেদন অবস্থা

জন্ম নিবন্ধন সংশোধন করতে কত টাকা লাগে

 

জন্ম নিবন্ধন আবেদন | নতুন জন্ম নিবন্ধন আবেদন



আবেদন করতে কি কি প্রয়োজন?

জন্ম নিবন্ধন করার সময় যে তথ্যগুলো লাগবে। যদি বয়স বেশি হয় তাহলে কি কি তথ্য লাগবে আর যদি কম হয় তাহলে কি কি তথ্য লাগবে। সেগুলো আমি নিচে উপস্থাপন করে দিব। 


বন্ধুরা আমি এখন আপনাদের সাথে শেয়ার করব। জন্ম নিবন্ধন করতে কি কি লাগে, সেগুলো বলবো। বয়স যদি ০ থেকে ৪৫ দিন পর্যন্ত হয়। তাদের জন্যে যা লাগবে আমি সেগুলো আগে আলোচনা করব।


০ থেকে ৫ বছর বয়স পর্যন্ত যে তথ্য গুলো লাগবে



১. টিকার কার্ড।

২. পিতা-মাতার জন্মনিবন্ধনের সনদ (বাংলা ও ইংরেজি বাধ্যতামূলক) ।

৩. জাতীয় পরিচয় পত্রের ফটোকপি।

৪. অভিভাবকের মোবাইল নাম্বার।

৫. বাড়ির হোল্ডিং নাম্বার ট্যাক্স এর রশিদ লাগবে।

৬. ফরমের সাথে রঙিন পাসপোর্ট সাইজের এক কপি ছবি লাগবে।

৭. প্রযোজ্য থেকে স্কুলের প্রধান শিক্ষকের প্রত্যয়নপত্র সীল ও স্বাক্ষর।


উপরে যে তথ্যগুলো দেয়া হয়েছে, এ তথ্যগুলো দিয়ে ০ থেকে ৫ বছর বয়স। যাদের তাদের ক্ষেত্রে এই তথ্যগুলো প্রয়োজন হবে। এই তথ্যগুলো দিয়ে আপনারা আপনাদের সন্তানদের জন্ম নিবন্ধন সনদ তৈরির জন্য লাগবে।


৫ বছরের অধিক হলে যে তথ্যগুলো লাগবে


যাদের বয়স ৫ বছরের অধিক। তাদের জন্য বিভিন্ন তথ্য গুলো প্রয়োজন হবে। ৫ বছরের অধিক হলে কি কি তথ্য লাগতে পারে সেগুলো আপনাদের সাথে এখন আমি শেয়ার করব।

১. শিক্ষাগত যোগ্যতার সনদ (পিএসসি জেএসসি এসএসসি ) শিক্ষাগত যোগ্যতার সনদপত্র না থাকলে    সরকারি হাসপাতালের এমবিবিএস ডাক্তারের স্বাক্ষর ও সীল প্রত্যায়ন জন্ম নিবন্ধন আবেদন ফরমের ৭  এর ১ নং এ স্বাক্ষর ও সীল বাধ্যতামূলক।

২.যাদের জন্ম ১/১/২০০১ এর পরে তাদের পিতা-মাতার অনলাইন জন্ম নিবন্ধন সনদ (বাংলা ও ইংরেজি বাধ্যতামূলক) সহ জাতীয় পরিচয় পত্রের ফটোকপি।

৩. যাদের জন্ম ১/১/২০০১ এর আগে তাদের জাতীয় পরিচয় পত্রের ফটোকপি। যদি পিতা মাতা মৃত হয় তাহলে মৃত্যু সনদ থাকলে তা প্রদান করতে হবে।

৪. যাদের জন্ম ১/১/২০০১ এর পর তাদের  পিতা মাতা মৃত হলে প্রথমে অনলাইন জন্ম নিবন্ধনের আবেদন গ্রহণ করতে হবে পড়ে মৃত্যু সনদ গ্রহণ করতে হবে।

৫. বাড়ির হোল্ডিং নাম্বার ট্যাক্স এর রশিদ লাগবে।

 ৬. অভিভাবকের মোবাইল নাম্বার।

৭. ফরমের সাথে রঙিন পাসপোর্ট সাইজের এক কপি ছবি লাগবে।

৮. আবেদনের সাথে সংযুক্ত ডকুমেন্ট পত্র সরকারি বিদ্যালয় প্রধান শিক্ষক বা কাউন্সিলর এর স্বাক্ষর ও সীল বাধ্যতামূলক।

৯. আবেদনের সংযুক্ত ডকুমেন্ট আবেদনের সময় আবেদনপত্র জমা দেওয়ার সময় আবেদনের মূল কপি প্রদর্শন করতে হবে।


জন্ম নিবন্ধন এর ওয়েবসাইট


জন্ম নিবন্ধন অনলাইন করতে https://bdris.gov.bd/ এই ওয়েবসাইটে প্রবেশ করতে করুন।

জন্ম নিবন্ধন অনলাইন করতে, উক্ত ওয়েবসাইটের লিংকে ঢুকে প্রয়োজনীয় তথ্য গুলো দিয়ে পূরণ করে জন্ম নিবন্ধন আবেদনটি করে নিন।







Next Post Previous Post
No Comment
Add Comment
comment url